সেভ দ্যা ওমেন

বাংলাদেশের নারীদের সময়পঞ্জিকা

খ্রীঃ পূর্ব ১২০০-৯০: উত্তর ও পশ্চিম ভারতে আর্যদের প্রবেশ শুরু ও মাতৃপ্রাধান্য সমাজব্যবস্থার পরিবর্তন। খ্রীঃ পূর্ব ৩২৭: মেসেনা অবরোধ যুদ্ধে ভারতীয় নারীদের অস্ত্রধারণ। খ্রীঃ পূর্ব ২০০: পতঞ্জলি কর্তৃক অস্ত্রধারী শক্তিকি সম্প্রদায়ের উল্লেখ। খ্রীঃ পূর্ব ৬০০: ব্রহ্মবাদীদের সভায় বিদূষী নারী গার্গীর প্রশ্ন উত্থাপন। ৯০০-১০০০ খ্রিষ্টাব্দ: চর্যাপদে তান্ত্রিক ধারার সাধনমার্গে নারীকে সাধন সঙ্গীনী হিসেবে গ্রহণ। ১১০০ খ্রিষ্টাব্দ: ডাকের বচন, এ্যালকেমি চর্চায় গ্রামীণ নারী সমাজের অংশগ্রহণ। ১২০৪ খ্রিষ্টাব্দ: বাংলায় ইসলাম ধর্মের প্রবেশ, ব্যাপক ধর্মান্তর ও ধর্মান্তরিত বাঙালী নারীদের মুসলিম আইন অনুযায়ী সম্পত্তি, দেনমোহর, তালাক ও পুনর্বিবাহের মতো গুরত্বপূর্ণ কিছু অধিকারপ্রাপ্তি। ১৩০০-১৪০০ খ্রিষ্টাব্দ: বাংলা মঙ্গলকাব্যের উদ্ভব ও বিকাশ, বাংলায় লোকধর্ম ও নারীদেবতা, নারী পুরোহিত শ্রেণীর অভূদ্যয়। ১৪০০-১৬০০ খ্রিষ্টাব্দ: বাংলায় বৈষ্ণব আন্দোলন, বৈষ্ণব ধর্মে সর্বস্তরের নারীর সক্রিয় অন্তর্ভুক্তি, নারী গুরু ও নারী মহান্ত শ্রেণীর উদ্ভব। ১৩৫১-১৫৭৭ খ্রিষ্টাব্দ: ফিরোজ তুঘলক ও সিকান্দর আলী লোদী কর্তৃক বাঙালী মুসলিম নারীর চলাচলের স্বাধীনতা হ্রাস। বোরখা ও ঢাকা গাড়ি ছাড়া মেয়েদের চলাচল নিষিদ্ধ, বাড়িতে জেনানা মহল তৈরি। ১৫৭৫ খ্রিষ্টাব্দ: মহিলা কবি চন্দ্রাবতীর রামায়ণ অনুবাদ।

যে কোনো প্রয়োজনে লিখুন-

আপনার যে কোনো বার্তা আমাদের কাছে অত্যন্ত মূল্যবান-

প্রতিষ্ঠাতা / নির্বাহী পরিচালক, সেভ দ্যা ওম্যান ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েশন:

কবি সেলিনা রশিদ নারীদের ভাগ্য উন্নয়নে সারা জীবন সচেষ্ট। তিনি ভাবেন কিভাবে নারীদের ভাগ্যকে উন্নয়ন করতে পারবেন। তাই তিনি তার শুধু জীবদ্দশায় নয়, তার অবর্তমানেও যাতে তার কার্যক্রমগুলি অব্যাহত থাকে এবং নারীদেরকে আর্থিক সহযোগিতা, বিভিন্ন ট্রেনিং সহ সাপোর্ট, বেকারত্ব দূরীকরণ করা সহ নানাবিধ কাজ করার জন্য এই সংস্থার জন্ম।
তিনি ভাবেন এই সংগঠনের মাধ্যমে বিভিন্ন ফান্ড কালেকশন করে যতদূর সম্ভব অসহায় নারীদের পাশে দাঁড়াবেন।

01 (1) (1) (1) (1) (1) (1)
নারী ক্ষমতায়নে শিক্ষার গুরুত্ব শীর্ষক বক্তব্য রাখছেন কবি সেলিনা রশিদ।
02 (1) (1) (1) (1) (1)
নারীর ক্ষমতায়নে ডিসির অফিসের সামনে স্মারক লিপি পেশ অনুষ্টানে কবি সেলিনা রশিদ।
s
সমিতি পরিদর্শনে কবি সেলিনা রশিদ।

নারীর মুক্তিই, বিশ্ব মুক্তি